do clothes matter in sex crimes

Do clothes matter in sex crimes ?

নারীর ছোট পোশাক কি ধর্ষণের জন্য দায়ী ? যারা দায়ী করেন তারা আসলে কারা ?

Rape is NOT an act of sex, it is an act of VIOLENCE.
Real men don’t rape.They don’t need to.

এসব নিয়ে অনেকবার লিখেছি, অন্যরাও লিখেছেন। এক কথা বার বার লিখতে ভাল লাগে না, পড়ার ধৈর্য্য না থাকলে অনর্থক কমেন্ট করে ত্যানা প্যাঁচানো অন্যায়। এই লিংকের লেখাগুলো পড়ে নিবেন দয়া করে। গুগলে ইংরেজীতে সার্চ দিবেন পোশাক ধর্ষণের জন্য দায়ী কিনা, তারপর সায়েন্টিফিক জার্নালে প্রকাশিত কোন গবেষণার রিপোর্ট পড়বেন। তবে মুক্তমন নিয়ে পড়তে হবে, আগে থেকেই একটা সিন্ধান্ত ধরে নিয়ে পড়লে হবে না। সায়েন্টিফিক রিসার্স এর ফল আপনার বিপক্ষে গেলেও সেটাকে সঠিক বলে মেনে নিতে হবে।

মেয়ে দেখলে আপনার দিলে লালা ঝরতে পারে, প্রকৃতির নিয়মই এটা। কিন্তু সেই লালাকে নিজের ভিতরে সীমাবদ্ধ না রাখতে পারলে তাকে জংলি মানুষ বলা যায়, বলা যায় নিকৃষ্ট প্রবৃত্তির অসভ্য মানুষ। নিজের লালা আটকিয়ে না রাখতে পারার অক্ষমতা তো আপনার, আপনার অক্ষমতা অন্যের ব্যক্তি স্বাধীনতা হরনের অযুহাত হতে পারে না।

ফেসবুকে প্রচুর পারভার্ট দেখা যায় নিয়মিতই, এদের মধ্যে এক দুইটা রেপিস্ট যে থাকবেনা এই কথা হলফ করে বলা যায়না।

ছোট পোশাক পরাই কি ধর্ষণের কারণ?
যুগের সাথে পোশাক
যুগে যুগে পোশাকের ধরনে পরিবর্তন এসেছে৷ আদিমকালে ছিল পশুর চামড়া, গাছের ছাল আর এখন রয়েছে নানা ধরনের পোশাক৷ বর্তমানে দেশ, সংস্কৃতি, সমাজ ব্যবস্থা, কাজের ধরন, অনুষ্ঠান, পছন্দ ও ফ্যাশানের ভিত্তিতে বহু ধরনের পোশাক পরে থাকেন নারীরা৷

ছোট পোশাক পরাই কি ধর্ষণের কারণ?
শরীর প্রদর্শন মানেই কি ধর্ষককে আমন্ত্রণ?
ভারতে বেশিরভাগ ধর্ষণ মামলায় দেখা গেছে, ধর্ষিতা সালোয়ার কামিজ বা শাড়ি পরেছিলেন৷ অর্থাৎ যাকে বলা হয় ভারতীয় নারীর আদর্শ পোশাক, সে ধরনের পোশাকই তাঁরা পরেছিলেন৷ অর্থাৎ এ জরিপ থেকেই প্রমাণিত হচ্ছে যে, শরীর প্রদর্শন না করে বা তথাকথিত ‘আধুনিক’ পোশাক না পরেও শ্লীলতাহানির শিকার হচ্ছেন নারীরা৷

ছোট পোশাক পরাই কি ধর্ষণের কারণ?
আইনের ভয় নেই
২০১৩ সালে এক জরিপে দেখা গেছে যে, এশীয় প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলোতে প্রতি চারজনের মধ্যে একজন পুরুষ জীবনে অন্তত একবার কোনো নারীকে ধর্ষণ করেছে৷ এর মধ্যে বেশিরভাগ পুরুষকেই কোনো আইনি ঝামেলা পোহাতে হয়নি৷

ছোট পোশাক পরাই কি ধর্ষণের কারণ?
ধর্ষণ যখন বিনোদনের মাধ্যম
ভারতের উত্তর প্রদেশে ধর্ষণের ঘটনা বেড়েই চলেছে৷ এর কারণ হিসেবে পুলিশ নারীদের উপর পশ্চিমা সংস্কৃতির প্রভাব, মেয়েদের মোবাইল ব্যবহার ও ছোট পোশাক পরিধানকে উল্লেখ করেছে৷ নারীদের নিরাপত্তা দিতে পুরোপুরি ব্যর্থ পুলিশ বলেছে, সেখানকার পুরুষরা তাদের বিনোদনের অভাব পূরণ করছে ধর্ষণের মাধ্যমে৷

ছোট পোশাক পরাই কি ধর্ষণের কারণ?
নারীদের দাবিয়ে রাখার হাতিয়ার
রাস্তা, অফিস বা যে কোনো পাবলিক প্লেসে পুরুষের যৌন হয়রানির শিকার হচ্ছেন নারীরা৷ বিশেষ করে পুরুষতান্ত্রিক সমাজ হওয়ায় নারীদের দাবিয়ে রাখতে পুরুষরা ধর্ষণকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে৷

ছোট পোশাক পরাই কি ধর্ষণের কারণ?
পরিচিতদের দ্বারাই বেশি ধর্ষণ
২০১৩ সালে ভারতের ন্যাশনাল ক্রাইম ব্যুরোর রিপোর্ট বলছে, সে বছর ১০০ জন ধর্ষণের শিকার নারীর মধ্যে ৯৮ জন এমন ব্যক্তিদের দ্বারা ধর্ষিত হয়েছেন, যারা তাঁদের পরিচিত৷ আদালতে যেসব মামলা ওঠে, বা গণমাধ্যমে যেসব ঘটনা প্রকাশ পায় সেগুলো বেশিরভাগই বাইরের লোকের হাতে৷ ফলে পরিচিত ব্যক্তি দ্বারা ধর্ষণের ব্যাপারটি ধামাচাপা পড়ে যায়৷

ছোট পোশাক পরাই কি ধর্ষণের কারণ?
যৌন নিগ্রহ সর্বত্র
ভারতে জন্মের আগে ভ্রুণের লিঙ্গ নির্ধারণ বেআইনি হলেও, খুব সাধারণ ঘটনা৷ ফলে পৃথিবীর আলো দেখতে পাওয়া মেয়েদের সংখ্যা এত কম যে, সমাজে নারী-পুরুষের অনুপাতে হেরফের হয়৷ এছাড়া বাল্যবিবাহ, কম বয়সে মা হওয়া, সন্তান জন্ম দিতে গিয়েও মৃত্যুবরণ করছেন নারীরা৷ পরিবারের ভেতরেও চলে যৌন নির্যাতন এবং ধর্ষণ৷ এরপরও কি আপনারা ধর্ষণের জন্য পোশাককে দায়ী করবেন?

Related Posts

No Human Child is Illegal

যে সমাজ একটি সত্যজাত শিশুকে নাম দিয়েছে ‘জারজ’ সেই সমাজই বরং ‘জারজ’

প্রত্যেক বাবা-মা’র উচিৎ তাদের সন্তানদের এই শিক্ষা দেয়া যে অনেক ব্যাপারে সমাজকে থোড়াই কেয়ার করবেRead More

A child should not give birth a child

বাল্যবিবাহের পক্ষে কথা বলা, আন্দোলন করা মূলত ইতর প্রকৃতির মানুষের কাজ

বাংলাদেশে বাল্যবিবাহের পক্ষে কথা বলার মতো অসংখ্য মানুষ আছে, এমনকি কিছু মানুষ আন্দোলনও করেছে। এরাRead More

Public Toilet and the Women

২০১৪ সালে ভারতে ১১০০০ ধর্ষণ কম হতো যদি তাদের টয়লেট থাকতো

“এখানে প্রশ্রাব করবেন না” নোটিশের সংখ্যার তুলনায়, পাবলিক টয়লেটের সংখ্যা কত ? এইযে এখানে প্রশ্রাবRead More

Comments are Closed