future of religion

What is the future of religion ?

ধর্মের নামে তারা যা বলে তার সবই সত্য নয়, ভুল সবই ভুল !

নীল আর্মস্ট্রং সম্পর্কে উনি নিজে যেটা বলবেন সেটা বিশ্বাস করবেন নাকি আমাদের মহান সাঈদী, আযহারীরা যা বলবেন সেটা বিশ্বাস করবেন ? নিশ্চয় সাঈদী, আযহারীরা মিথ্যা বলতেই পারেন না। আর্মস্ট্রং নিজেই মিথ্যা বলেন। উনি চাঁদ ঘুরে এসে নিজে বলেন চাঁদে কোন মিউজিক, শব্দ কিছুই শোনেননি। এদিকে সাঈদী, আযহারীরা বলেন উনি চাঁদে গিয়ে ধর্মীয় সুমধুর শব্দ শুনেছেন। নিশ্চয় নীল আর্মস্ট্রং-ই মিথ্যুক, কি বলেন ?

নীল আর্মস্ট্রং, চাঁদের বুকে পা দেওয়া প্রথম মানুষ। বাংলাদেশে লক্ষ মানুষের সামনে মঞ্চে বসে কিছু মানুষ এখন পর্যন্ত এই ২০২০ সালে এসেও তার সম্পর্কে এমন কিছু কথা বলেন যা তিনি নিজে জানেন না। তিনি চাঁদে ধর্মীয় সুমধুর শব্দ শুনেছেন এবং পরে তার ধর্ম পরিবর্তন করেছেন। লক্ষ মানুষ সেটা বিশ্বাস করে তৃপ্তির ঢেকুর নিয়ে বাড়ি ফেরে।

চাঁদে কোন বাতাস নেই। সুতরাং চাঁদে কোন শব্দ শোনা অসম্ভব। বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা দেখুনঃ
Can People Hear Sound on the Moon? : Audio & Sound –

নীল আর্মস্ট্রং নিজেও এই মিথ্যাচারের জবাব দিয়েছেন অনেকবার। তার জীবনীগ্রন্থ, প্রশ্ন-উত্তর সবখানে তিনি এই ভন্ডদের এই দাবী অস্বীকার করেছেন।

নাসাও এ সমস্ত কল্পকাহিনী উড়িয়ে দিয়েছে অনেকবার। মালয়েশিয়াতে হওয়া গ্লোবাল লিডারশিপ ফোরাম ২০০৫ এ সেপ্টেম্বর মাসে নীল আর্মষ্ট্রং অংশগ্রহণ করেন। ৬ সেপ্টেম্বর তারিখে মালয়েশিয়ার সর্বাধিক প্রচারিত ইংরেজী দৈনিক “স্টার মালয়েশিয়া” তার একটি সাক্ষাৎকার গ্রহণ করে। এই সাক্ষাৎকারটি প্রকাশিত হয় ৭ ই সেপ্টেম্বর ২০০৫ তারিখে। স্টার মালয়েশিয়ার আর্কাইভ লিংকে সেই নিউজটি পাবেন এখানে অথবা এখানে

নীচ থেকে ২য় প্যারাটা পড়ুন। তিনি তার সম্পর্কে এই শব্দ শোনা ও পরে ধর্ম পরিবর্তনের কথা স্পস্টভাবে প্রত্যাখ্যান করেছেন। ব্যাপারটা এমন, তার নিজের সম্পর্কে তার চেয়ে বেশী জানে বাংলাদেশের বক্তারা ! আমারিকা সরকারের স্টেট ডিপার্টমেন্টের বক্তব্যও আছে এই প্রপাগান্ডাকে মিথ্যা বলে।

এখন বলুন বাংলাদেশের স্টার বক্তারা আর কতদিন এই মিথ্যা গল্প ফাঁদবে ? এই গল্পের মতো শত শত মিথ্যা গল্প তারা ফাঁদে বিজ্ঞান ও বিজ্ঞানীদের সম্পর্কে। কি দরকার এই মিথ্যাগুলো বলে তাদেরকে অন্ধের মতো বিশ্বাস করা মানুষকে বোকা বানানোর ? সবাই বলে আর দোষ হয় শুধু বিজ্ঞানী হুজুরের।

বাই দ্যা ওয়ে কুকুর লাইকা পাঠিয়েছিল রাশিয়া, আমেরিকার নাসা নয়। এরা যে কত ভুলভাল কথা বলে সামনে বসে থাকা মানুষকে মোহবিষ্ট করে সে আর নতুন করে বলার কি আছে ?

Related Posts

Virus and Human Intelligence

আপনি কি জানেন মানুষের বিকাশ ও সভ্যতায় ভাইরাসের অবদান অনেক ?

আমি আগেও লিখেছি এই পৃথিবী মূলত ভাইরাস, ব্যকটেরিয়াদের। আমরা তাদের সেই পৃথিবীতে পরজীবী। এই পৃথিবীতেRead More

60 Feet Tall Man

মানুষের উচ্চতা কি ৯০ ফুট কিমবা ৬০ ফুট হওয়া সম্ভব ?

বাংলাদেশের সবচেয়ে লম্বা মানুষ হিসাবে এই জিন্নাত আলীর নাম আমি অনেক আগে থেকেই জানি। আমারRead More

Science and Innovation

বিজ্ঞানের পথ কখনো মসৃন ছিল না, অন্ধকারের শক্তি বরাবরই প্রতিপক্ষ হয়েছে

বিজ্ঞানের পথ কখনো মসৃন ছিল না। পৃথিবীর কল্যাণে বিজ্ঞান গবেষণায় কারো কোন ক্ষতি নেই, তবু্ওRead More

Comments are Closed